১৮/০৬/২০২৪ ইং
Home / আন্তর্জাতিক / বাংলাদেশকে হারিয়ে সিরিজে সমতা আনল জিম্বাবুয়ে

বাংলাদেশকে হারিয়ে সিরিজে সমতা আনল জিম্বাবুয়ে

বাংলাদেশকে হারিয়ে সিরিজে সমতা আনল জিম্বাবুয়ে

প্রকাশিত: শুক্রবার, ২৩শে জুলাই ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সুমন বিশ্বাস (ফরিদপুর প্রতিনিধি) :

লক্ষ্য ১৬৭ রানের। টি-টোয়েন্টিতে চ্যালেঞ্জিংই বটে। আর এই লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৫৩ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে পরাজয়ের শঙ্কায় পড়ে বাংলাদেশ। ব্যাটিংয়ে টপ ও মিডল অর্ডারের কেউ কোনো অবদান রাখতে পারেননি। দুই ওপেনার নাঈম ও সৌম্যর পর ব্যর্থ সাকিব ও মাহমুদউল্লাহ। বড় বড় শট খেলতে গিয়ে সবাই বাউন্ডারি ক্যাচে পরিণত হয়েছেন। অবশেষে পরাজয় মানতেই হলো। ১৬৭ রানের তাড়ায় ১ বল বাকি থাকতে ১৪৩ রানে অলআউট বাংলাদেশ।

২৩ রানে জয় নিয়ে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি নিজের করে নিল জিম্বাবুয়ে। ১-১ সমতায় আগামী ২৫শে জুলাই সিরিজ নিশ্চিতের জন্য একই ভেন্যুতে নামবে দুই দল। কিছুটা ধরে রেখে খেলতে চেয়েছিলেন অলরাউন্ডার আফিফ। তিনিও পারলেন না। ২৫ বলে ২৪ রান করে বিদায় নিলেন চাতারার বলে। প্রথম দিকে সবাই তাকিয়েছিল আফিফ ও অভিষিক্ত অলরাউন্ডার শামিম হোসেন পাটওয়ারীর দিকে। আন্তর্জাতিকে প্রথম ম্যাচে নেমে দুর্দান্ত কয়েকটি শট খেলে আশা জাগিয়েছিলেন শামিম। কিন্তু তিনিও পারলেন না। মারমুখি হয়ে খেলতে গিয়ে ধরা পড়লেন সেই মাসাকাদজার হাতে।

১৬ তম ওভারে লুক জঙ্গুয়ের বলে লংঅনে ক্যাচ তুলে ফিরেছেন শামিম পাটওয়ারি। পূর্বে ৩ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায় ১৩ বলে ২৯ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন শামিম। এরপর ম্যাচ জেতানোর সব দায়িত্ব এসে জমে অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিনের কাঁধে। কিন্তু তিনিও পারলেন না। শেষ ওভারে প্রয়োজন পড়ে ৩০ রানের। বাউন্ডারি হাঁকানো ছাড়া কোনো উপায় ছিল না। লুক জঙ্গুয়ে করতে আসেন শেষ ওভারটি। প্রথম বলটি ওয়াইড দেন। দ্বিতীয় বলকে বাউন্ডারি হাঁকান সাইফউদ্দিন। কিন্তু তৃতীয় বল সজোরে হাঁকান। টাইমিং হয়নি। এক্সট্রা ওভারে ধরা পড়ে সিকান্দার রাজার হাতে।

১৫ বলে ১৯ রান করে সাজঘরে ফেরেন। ৩ বলে ২৪ রানের দরকার পরে। তিনটিতে ছক্কা হাঁকালেও লাভ নেই। ২ বলে ৩ রান নিয়ে পঞ্চম বলে তিনিও ধরা দেন লঙ ওনে। ১ বল বাকি থাকতে ১৪৩ রানে থেমে গেছে বাংলাদেশের ইনিংস। ২৩ রানে জয় পেল জিম্বাবুয়ে। টসে জিতে ব্যাটিং নেয় জিম্বাবুয়ে। ৫৭ বলে ৭৩ রানের ইনিংস খেলেন জিম্বাবুয়ের ওপেনার ওয়েসলি মাধেভেরে। তার ইনিংসে ভরকের বাংলাদেশকে ৬ উইকেটে ১৬৭ রানের চ্যালেঞ্জিং টার্গেট ছুড়ে দেয় স্বাগতিকরা। আর ১৬৭ রানের তাড়ায় গত ম্যাচের রেকর্ড উদ্বোধনী জুটি গড়া নাঈম- সৌম্য আজকে করতে পেরেছেন মাত্র ১৪ রান।

দু’জনেই যথাক্রমে ৫ ও ৮ রানে আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন। বাংলাদেশ ব্যাটিং ইনিংসের প্রথম ওভারটি করেন অধিনায়ক সিকান্দার রাজা ৭ রান দেন। দ্বিতীয় ওভারটি করান চাতারাকে দিয়ে। তার ওভারেও ৭ রান নিয়ে বিনা উইকেটে ১৪ রান জমা হয় স্কোরবোর্ডে। এরপর দলীয় তৃতীয় ওভারটি করতে আসেন পেসার মুজারাবানি। নিজের প্রথম ওভারেই জোড়া আঘাত হানেন। প্রথম বলেই বোল্ড করেন নাঈমকে। চতুর্থ বলে সিকান্দার রাজার হাতে ক্যাচ তুলে দেন সৌম্য সরকার। এরপর দলের হাল ধরতে আসেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তিনিও ব্যর্থ হন। ১০ বলে মাত্র ১২ রানেই সমাপ্তি ঘটে তার ইনিংসের।

দলীয় সপ্তম ওভারে মাসাকাদজার চতুর্থ বলটি ঠিকমতো খেলতে পারেননি সাকিব। এজ হয়ে কভারে দাঁড়িয়ে থাকা সিকান্দার রাজার ক্যাচে পরিণত হন। মাসাকাদজার পরের ওভারের প্রথম বলেই ফেরেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। ৬ বলে মাত্র ৪ রান যোগ করেছেন আজ তিনি। একই ওভারের চতুর্থ বলে মেহেদীকেও ফেরান মাসাকাদজা। ১৯ বলে ১৫ রানে থেমে গেছে মিরাজের ইনিংস। এর আগে দুই ওপেনারকে সাজঘরে ফিরিয়েছেন পেসার ব্লেসিং মুজারাবানি।

Print Friendly, PDF & Email

About newsdesk

Check Also

বঙ্গবন্ধুর ১০৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে শওকত ইরফান রিয়াদের উদ্যোগে পবিত্র খতমে কুরআন ও দো’য়া অনুষ্ঠিত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *